শুক্রবার, ডিসেম্বর ৬, ২০১৯

প্রতিদিন দই খান সুস্থ থাকুন

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্কঃ
  • ২০১৯-১০-০২ ০৪:২৮:০৫
image

অধিকাংশ মানুষ স্বাস্থ্য সচেতন হ’লেও রোগ বালাই তার সাথে পাল্লা দিয়ে মানুষকে আক্রমণ করছে। কিন্তু মানুষকে বসে থাকলে চলবে না। প্রতিনিয়ত তাকে একদিকে রোগকে জয় করার চেষ্টা করতে হবে অন্যদিকে রোগ প্রতিরোধেরও চেষ্টা করতে হবে। আর রোগ প্রতিরোধ করার সবচেয়ে বড় হাতিয়ার হচ্ছে খাদ্য। খাদ্য যেমন রোগকে দূরে রাখতে পারে তেমনি আবার এই খাবারের কারণে শত রোগ মানুষের শরীরে বাসা বাঁধে। কাজেই অন্য নিয়ম কানুনের সাথে খাদ্যের ব্যাপারেও সবাইকে হতে হবে অনেক বেশী সচেতন, তবেই হয়ত সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হয়ে সুন্দর জীবনযাপন করা সম্ভব হবে।
পৃথিবীতে বেশ কিছু খাদ্য আছে, যা একই সাথে শত গুণের আধার। তেমনই একটা খাদ্য হচ্ছে ‘টক দই’। এই টক দই আমাদের শরীরের জন্য নানা ধরনের কাজ করে থাকে। নিয়মিত টক দই খেলে তা দেহকে নানাভাবে উপকার করে। টক দইয়ে আছে আমিষ, ভিটামিন, মিনারেল ইত্যাদি। টক দইয়ে থাকে অসংখ্য ব্যাকটেরিয়া যা স্বাস্থ্যের জন্য ভীষণ উপকারী। এতে দুধের চেয়েও বেশী ভিটামিন বি, ক্যালসিয়াম ও পটাশ আছে। নিয়মিত টক দই খাওয়া শুরু করলে তার ফল পাওয়া যায় তড়িৎ গতিতে। সেকারণ ডাক্তার বা পুষ্টিবিদেরা সবসময়ই টক দই খেতে পরামর্শ দেন।
খুব সহজেই বানানো যায় এমন একটি খাবার হলো দই। এটা ঝামেলাহীনভাবে বেশ কয়েকদিন সংরক্ষণ করা যায়। ফলে এক বাটি দই আপনি বেশ কয়েকদিন খেতে পারবেন। যাদের চিনি খেতে সমস্যা, তারা চাইলে টক দইও খেতে পারেন। দই শরীরের জন্য খুবই উপকারী। এটা খেলে কী উপকার পাবেন দেখে নিন-
হজমে সহায়তা: দই এমন একটি খাবার, যাতে জীবিত ব্যাকটেরিয়া থাকে। এগুলো হজম প্রক্রিয়ায় কার্যকর ভূমিকা পালন করে। বদহজমের ওষুধ হিসেব দইয়ের পরিচিতি রয়েছে।
সুন্দর ও স্বাস্থ্যবান ত্বক: দই ত্বককে সুন্দর ও স্বাস্থ্যবান করে তোলে। পাশাপাশি প্রাকৃতিকভাবে ত্বকের শুষ্কতাও দূর করে। অনেকেই ত্বকের সৌন্দর্যের জন্য নানা ধরনের ফেসপ্যাক ব্যবহার করেন। সেগুলোর পরিবর্তে নিয়মিত দই খেলে সন্তোষজনক উপকার পাওয়া যাবে।
উচ্চরক্তচাপ দূর করা: আমেরিকান হার্ট এসোসিয়েশনের (এএইচএ) হাই ব্লাড প্রেসার রিসার্চ সায়েন্টিফিক সেশনে উপস্থাপিত একটি গবেষণা বলছে, যারা নিয়মিত ফ্যাটহীন দই খায়, তাদের উচ্চরক্তচাপে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অন্যদের চেয়ে ৩১ শতাংশ কম।
নারীদের যৌনাঙ্গের সংক্রমণ দূর: নারীদের যৌনাঙ্গে সংক্রমণ প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করে দই। এতে ল্যাকটোব্যাকিলাস অ্যাসিডোফিলাস নামের একধরনের ব্যাকটেরিয়া থাকে, যা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করে।
হাড়ের জন্য উপকারী:দই হাড়ের জন্যও খুব উপকারী। ইউনাইটেড স্টেটস ডিপার্টমেন্ট অব এগ্রিকালচার বলছে, প্রতি ২৫০ গ্রাম দইয়ে ২৭৫ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম থাকে। প্রতিদিন এই পরিমাণ ক্যালসিয়াম গ্রহণ করলে হাড়ের ঘনত্ব বাড়ার পাশাপাশি হাড় শক্ত হয়।


এ জাতীয় আরো খবর