শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯

খেলাধূলার মাধ্যমে সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষকে একত্রিত করেছে মিশিগান বেঙ্গলস : ডা: মৃধা

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২০১৯-১১-২৩ ০৬:৪৩:১২
image

বেভারলিহিল সিটি : বিশিষ্ট নিউরলজিস্ট এবং দার্শনিক ডা: দেবাশীষ মৃধা বলেছেন, শরীর মন সুস্থ রাখতে খেলাধূলা অপিরহার্য। একমাত্র খেলাধূলার মাধ্যমেই আমরা পেতে পারি সুস্থ ও সুন্দর জীবন। আর তাই মিশিগান বেঙ্গলস বিভিন্ন ধরণের খেলাধূলার আয়োজন করে কমিউনিটির লোকজনকে সুস্থ ও সুন্দর পথে নিয়ে যাচ্ছে। 
ডা: দেবাশীষ মৃধা গত রবিবার (১৭ নভেম্বর) বেভারলিহিল শহরের গ্রোভ হাইস্কুল মিলনায়তনে মিশিগান বেঙ্গলস এর বার্ষিক ক্রীড়া পুরষ্কার, গালা নাইট ও অ্যাওয়ার্ড বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন। তিনি বলেন, এই প্রবাসে খেলাধূলা ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সকল শ্রেণী ও পেশার বাংলাদেশিদের একত্রিত করার এক অনন্য কৃতিত্ব অর্জন করেছে মিশিগান বেঙ্গলস। এজন্য তিনি  আয়োজকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, মিশিগানে বাংলাদেশি কমিউনিটির এই আয়োজনের সঙ্গে থাকতে পেরে আমি গর্বিত ও আনন্দিত।


জমকালো এ অনুষ্ঠানে স্থানীয় প্রবাসীরা ছাড়াও এতে অংশ নেন ওহাইও ও কানাডা থেকে আগত অতিথিবৃন্দ। দুপুর থেকে টানা রাত পর্যন্ত দর্শকরা উপভোগ করেন নাটক, নৃত্যানুষ্ঠান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের শুরুতে ‘মিশিগান বেঙ্গলসের’ কার্যকরী ও উপদেষ্টা কমিটিকে পরিচয় করিয়ে দেন উপদেষ্টা সাইদ ফয়সাল। উপদেষ্টাগণ হলেন গোলাম মোস্তফা, মাহবুব চৌধুরী, ফরিদ চৌধুরী, মোহাম্মদ শাহিন ইসলাম এবং আবেদুর রাসুল। কার্যকরী কমিটির সদস্যরা হলেন- সাইফ সিদ্দিকী, কৌশিক আহমেদ, মোহাম্মদ আলমগীর হোসাইন, মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন আজিজ, মারুফ মনওয়ার ও রসি মীর। 


অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী ক্যাপ্টেন (অব.) ডা. সিতারা রহমান বীর প্রতীক এবং তার স্বামী ডা. এম আবিদুর রহমান। মিশিগান বেঙ্গলস তাদেরকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করে। মুক্তিযোদ্ধা এই দম্পতিকে লাল-সবুজ উত্তরীয় পরিয়ে দেন এলিশা ভূঁইয়া ও রায়া সিরাজ।  ডা.  সিতারা বেগমকে সম্মাননা স্মারক ক্রেস্ট তুলে দেন সাইদ ফয়সাল ও রসি মীর। মুক্তিযুদ্ধে সিতারা বেগমের সাহসিকতার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস তুলে ধরেন শ্রেয়া হাসান। এছাড়াও অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ডা: দেবাশীষ মৃধাকে ক্লাবের পৃষ্ঠপোষক ও সমাজসেবক হিসেবে পুরস্কৃত করা হয়। সকল আয়োজনে নেতৃত্বের জন্য রসি মীরকে সেরা সংগঠকের পুরস্কার দেওয়া হয়।


এ বছর মিশিগান বেঙ্গলস ক্লাব প্রবাসী বাংলাদেশিদের নিয়ে ক্রিকেট, ভলিবল, ব্যাডমিন্টন, টেবিল টেনিস, দাবা টুর্নামেন্ট আয়োজন করে। এতে কয়েক‘শ বাংলাদেশি অংশ নেন। এ ছাড়া প্রবাসী বাংলাদেশি-আমেরিকান শিশুদের জন্য তিন মাসব্যাপী ফুটবল ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়।   ২০১৯ সালের এসব টুর্নামেন্টে সফল খেলোয়াড়দের পুরষ্কৃত করা হয়। 
ক্রিকেটে এ বছর চ্যাম্পিয়ন হয় বেঙ্গল স্পার্টান্স। রানার্সআপ হয় মিশিগান বেঙ্গল হিরোস। সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন সামী শোকরানা। সেরা ব্যাটসম্যান তারেক খান ও সেরা বোলার হন সামী শোকরানা। ভলিবল টুর্নামেন্টে মিশিগান বেঙ্গল ওয়ারিয়র্স চ্যাম্পিয়ন ও ব্লক অ্যান্ড রোল রানার্সআপ হয়। দাবায় চ্যাম্পিয়ন হন ড. সাইদ আশরাফ, রানার্সআপ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন আজিজ, সেকেন্ড রানার্সআপ এহতেশাম রাব্বি।টেবিল টেনিসে এককে চ্যাম্পিয়ন মারুফ মনওয়ার। রানার্সআপ মোহাম্মদ আলমগীর হোসাইন। দ্বৈত বিভাগে চ্যাম্পিয়ন সালাহউদ্দিন আজিজ ও মারুফ মনওয়ার। রানার্সআপ শাহিন ইসলাম ও আলমগীর হোসাইন। ব্যাডমিন্টনে চ্যাম্পিয়ন হন কৌশিক আহমেদ ও মারুফ মনওয়ার এবং রানার্সআপ হন সাইদ আশরাফ ও আলমগীর হোসাইন। পুরস্কার বিতরণে মঞ্চে সহযোগিতা করেন কৌশিক, রসি, পুলক, মারুফ ফিরোজ, মাহবুব ও সাইদ আশরাফ।


নৃত্য পরিবেশন করেন মঞ্জুরি, শায়রিন, তাজরী, রিদিতা, শ্রেয়া, রায়া, এলিশা, রায়া, রিহান, আতিফ, আরিয়ান, শাম্মা, শারমিন, বন্যা, এমি, রসি, মারুফ, সাফী, রাদিয়া, শারমিন ও পুলক এবং রসি-শারমিন জুটি। সঙ্গীত পরিবেশন করেন অমিতা মৃধা, নাশিতা আজিজ ও জারা আনোয়ার। দলীয় নৃত্য পরিবেশন করেন এমি ইসলাম, সুমাইয়া শাম্মা, শারমিন তানিম, সানজিদা বন্যা, ফারজানা সানিয়া, সহেলী ও নাফিসা। সঙ্গীত পরিবেশন করেন শাফকাত রহমান আবির, তৃনা বড়ুয়া, মোহাম্মদ নাজমুল আনোয়ার, এনী, জাফরি নিতু, আরশিত, প্রিয়া ও অরবিন্দ। কোরিওগ্রাফিতে ছিলেন এমি ইসলাম। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন পপি দাস ও উবেদা সাহিরা সাউদা। পরিচালনায় ছিলেন রসি মীর, কৌশিক আহমেদ ও সাইফ সিদ্দিকী।


এ জাতীয় আরো খবর