শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯

মিয়ানমার সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করবে সরকার

  • ঢাকা প্রতিনিধি :
  • ২০১৯-১১-২৪ ১৮:৪৩:৫১
image

ঢাকা : বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ২৮৭ কিলোমিটার সীমান্ত সড়ক ও কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছে সরকার। চূড়ান্ত পর্যায়ে এই পরিকল্পনা আছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে ঠিকাদার নিয়োগ করা হবে। এরপর শুরু হবে কাজ। তিনি বলেন, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে শুরু হয়েছে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের প্রক্রিয়া। প্রথম পর্যায়ে উখিয়ার কুতুপালং ও টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দেয়া হবে কাঁটাতারের বেড়া। বেড়া দেওয়ার জন্য যে পিলার প্রয়োজন, সেগুলোর নির্মাণও প্রায় শেষ পর্যায়ে।
তিনি আজ রোববার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে কক্সবাজারের রামু সেনানিবাসের ১০ পদাতিক ডিভিশনের ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারি ৬ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন এবং ১৩ ও ১৪ বীরকে রেজিমেন্টাল কালার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। 
অনুষ্ঠানে সেনাপ্রধান বলেন, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই প্রশংসনীয় কার্যক্রম প্রদর্শনের মাধ্যমে এসব রেজিমেন্ট রেজিমেন্টাল কালার পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছে। রেজিমেন্টাল কালার প্রাপ্তি যে কোনো ইউনিটের জন্য একটি বিরল সম্মান এবং পবিত্র আমানত।
সেনাপ্রধান বলেন, ‘আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার। প্রতিবেশীদের সঙ্গে সব সময় ভালো সম্পর্ক বজায় রাখতে চাই। ওটা আমাদের জাতীয় নীতির অংশ। আগামী মাসে সম্পর্ক উন্নয়নের জন্য আমি মিয়ানমার সফরে যাচ্ছি। ওখানে হতে পারে নানা বিষয়ে আলোচনা।
অনুষ্ঠানে রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মো. মাঈন উল্লাহ চৌধুরী, তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, সংসদ সদস্য জাফর আলম, এয়ার কমোডর মুহাম্মদ শাফকাত আলী, ডিজিএফআই কক্সবাজার অধিনায়ক কর্নেল আবুজার আল জাহিদ, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. মাহবুব আলম তালুকদার, জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেনসহ ইউএনএইচসিআর, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা, সুশীল সমাজের ব্যক্তিসহ সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 


এ জাতীয় আরো খবর