শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯

ব্ল্যাক ফ্রাইডে আসলেই কালো নয়!

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২০১৯-১১-২৯ ১৩:১৬:৩৬
image

হ্যামট্রামাক : আমেরিকায় প্রতি বছর নভেম্বর মাসের চতুর্থ শুক্রবার ব্ল্যাক ফ্রাইডে হিসেবে পালন করা হয়। এর আগের দিন পালিত হয় থ্যাংকস গিভিং ডে। ব্ল্যাক ফ্রাইডের শাব্দিক অর্থ কালো শুক্রবার। কিন্তু শাব্দিক অর্থ ঠিক নয়। এই শুক্রবার দেশটির ক্রেতা-বিক্রেতাদের জন্য একটি শুভ দিন হিসেবে বিবেচিত হয়, অশুভ নয়। আমেরিকান রীতি অনুযায়ী এই শুক্রবার থেকেই শুরু হয় ক্রিসমাস হলিডে সিজন।
ব্ল্যাক ফ্রাইডে মার্কিনীদের কাছে বহু আকাঙ্খিত একটি দিন। অনেকে সারা বছর ধরেই এই দিনটির অপেক্ষায় থাকেন। এই দিনে আমেরিকার প্রায় সব ব্যবসায়ীরা তাদের পণ্য অস্বাভাবিক মূল্য ছাড়ে বিক্রি করে দেয়। ফলে আমেরিকায় সারা বছরে যে পরিমাণ বেচাকেনা হয়, তার প্রায় অর্ধেক পরিমাণ হয় কেবল এই দিনেই। এই একদিনে আমেরিকার অর্থনীতির সূচক এক লাফে অনেকখানি সামনে এগিয়ে যায়। সারা বছর লাল কালিতে লোকসান লিখতে লিখতে ক্লান্ত হয়ে যাওয়া ব্যবসায়ীরা এদিন দোকানের খাতায় লাভের অঙ্ক লিখে কূল পান না। আর লাভ তো লিখতে হয় কালো কালিতেই! তাই এদিনের নাম ব্ল্যাক ফ্রাইডে হতে পারে।
ব্ল্যাক শব্দটি নেতিবাচক অর্থ বহন করলেও ব্ল্যাক ফ্রাইডের ব্ল্যাক শব্দটি ব্যবসায়িক দিক থেকে ইতিবাচক দিককে নির্দেশ করে। তবে ঘটনা একটা আছে। ১৮৬৯ সালে আমেরিকা ভয়াবহ এক অর্থনৈতিক মন্দার কবলে পড়েছিল। সেই মন্দা থেকে উত্তরণের জন্য একটি বিশেষ দিনের কথা চিন্তা করে ব্যবসায়ীরা। যেদিন তারা অবিশ্বাস্য অঙ্কের নানা মূল্যছাড় ঘোষণা করবে জনগণের জন্য। ফলে মানুষ ব্যাপক হারে কেনাকাটা করবে। বাস্তবে তাই-ই হয়েছে। মানুষ ওইদিন একরকম পাগলই হয়ে যায়। ভোর পাঁচটায় দোকান খুলে মূল্যছাড়ে বিক্রি হবে বলে আগের দিন বিকাল থেকেই দোকানের সামনে লাইন দেয় ছোট-বড় সবাই। কে লাইনের আগে যাবে সেটা নিয়ে মারামারিও হয় মাঝে মধ্যে।
কারো মতে, ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামটি এসেছে সম্পূর্ণ ভিন্ন উৎস থেকে। ১৯৬৬ সালে ফিলাডেলফিয়া রাজ্য পুলিশ থ্যাঙ্কস গিভিং ডে’র পরের দিনকে ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামে অভিহিত করেছিল। ইউনিভার্সিটি অব নর্থ ক্যারোলিনার গবেষক টেলর ব্রেক কারণ হিসেবে বলেন, এই দিনে আমেরিকায় বছরের সবচেয়ে বড় সেল ও বছরের সবচেয়ে উত্তেজনাকর ফুটবল গেম অনুষ্ঠিত হতো। এ খেলার প্রতিযোগিতায় প্রতিদ্বন্ধিতা করতো আমেরিকান সেনাবাহিনী ও নৌবাহিনী। এ খেলার কারণে শহরের রাস্তাজুড়ে থাকতো ট্রাফিক জ্যাম।
এছাড়া ফুটপাতে মানুষের প্রচন্ড ভিড় সামলাতে পাগলপ্রায় হয়ে যেত ফিলাডেলফিয়ার পুলিশ ও বাস চালকরা। এদিনকে সামনে রেখে আমেরিকার রিটেইল স্টোরগুলো এবং আসবাবপত্রের দোকানগুলো বিভিন্ন ছাড় ও পুরস্কারের ঘোষণা দিয়ে থাকে। এছাড়া ছোট-বড় বিভিন্ন কোম্পানি দু’তিন সপ্তাহ আগে থেকেই ব্ল্যাক ফ্রাইডে সেল উপলক্ষে বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রচারণা চালাতে থাকে। টিভি-রেডিও এবং প্রতিদিনের সংবাদপত্রে প্রচার চালানোর পাশাপাশি প্রত্যেক বাড়ির মেইলবক্সে রঙিন সেল পেপার দেয় তারা। কে কী আইটেম নিয়ে বাজারে আসছে অথবা কে কত বেশি আকর্ষণীয় মূল্যে পণ্য ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেবে, এটা নিয়ে কোম্পানিগুলোর মধ্যে শুরু হয় প্রতিযোগিতা। বিক্রেতাদের পাশাপাশি ক্রেতারাও থাকেন উত্তেজিত।


এ জাতীয় আরো খবর