বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০

করোনা আবহে সাতপাকে বাধা পড়লেন অনামিকা ও সুপ্রিয়

  • নিজস্ব প্রতিবেদক :
image

প্রতীকী ছবি, সৌজন্যে পিকসবে

ডেট্রয়েট : বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক হয়েছিল কয়েক মাস আগেই। কিন্তু করোনার জেরে কয়েক দফা পরিবর্তন হয়েছে তারিখ। নির্ধারিত দিন চলে গেলে তারপরে আবার সময় বের করা যথেষ্ট কঠিন। আর এইরকমই পরিস্থিতিতে পড়েছিলেন বর ও কনে পক্ষ। অবশেষে নিয়ম মেনে আর শুভ দিন দেখে তবেই সাতপাকে বাধা পড়লেন অনামিকা-সুপ্রিয়। রীতিমতো  সামাজিক দুরত্ব বজায় এবং পুরোহিতের মন্ত্রোচ্চারণের মধ্যে দিয়ে বর-কনের চারহাত এক হল গতকাল রোববার রাতে ডেট্রয়েট দুর্গা টেম্পলে । 
পাত্রী মিশিগান রাজ্যের ডেট্রয়েট শহরের বাসিন্দা অনামিকা পাল। পিতার নাম  কৃপেশ চন্দ্র পাল। আদি নিবাস হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলা সদর। পাত্র  ওহাই রাজ্যে বসবাসরত সুপ্রিয় তরফদার। পিতা সুলধর তরফদার। ময়মনসিংহের ত্রিশালের বাসিন্দা। কথায় বলে হাজার কথা না হলে নাকি বিয়ে হয়না। আর এই কারণেই প্রায় ৭ মাস আগে তাদের বিয়ের তোড়জোড় শুরু হয়।  ঠিক এমনি সময়ে করোনার বিরুদ্ধে লড়তে  মিশিগানে জারি  করা হয় স্টে হোম আদেশ। এতে বন্ধ হয়ে যায় অনুষ্ঠান, সভা সমাবেশ। ইতিমধ্যে এ আদেশ প্রত্যাহার হলেও মিশিগানে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এছাড়া সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে জোর দেয়া হচ্ছে। আর তাই নিয়ম মেনেই করোনা আবহে সাত পাকে ঘোরা, মালা বদল, সিঁদুর দান, শুভদৃষ্টি এবং অগ্নিদেবতাকে সাক্ষী রেখে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলেন এই নবদম্পতি। দুর্গা টেম্পলের প্রিস্ট পূর্ণেন্দু চক্রবর্তী অপুর পৌরহিত্যে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে।
মাত্র হাতেগোনা কয়েকজন বরযাত্রী ও সীমিত সংখ্যক আমন্ত্রিত অতিথি নিয়ে বিয়ের অনুষ্টান হয়েছে। সবার মুখেই ছিল মাস্ক। মন্দিরের প্রবেশ মুখে রাখা হয়েছিল স্যানিটাইজার। দরজায় সাটানো ছিল সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য প্ল্যাকার্ড। বরযাত্রীদের আপ্যায়নে মিষ্টির প্যাকেটের সাথে দেয়া হয় হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক ৷ এক নতুন রূপে বিয়ে দেখলেন আমন্ত্রিত অতিথিরা। 
বার কয়েক তারিখ পরিবর্তনের পর নবদম্পতি সাতপাকে বাঁধা পড়লেন এতে খুশি অনামিকার কাকা দিনেশ পাল । কন্যা সম্প্রদানও করেন তিনি। তিনি জানান, স্টে হোম আদেশ উঠলেও জমায়েত করা উচিত নয়, পরিস্থিতি বিবেচনা করে ছোট করেই অনুষ্ঠান করার সিদ্ধান্ত নেন তারা।  তিনি বলেন, এভাবে মেয়ের বিয়ে দিতে মন খারাপ লাগছে ঠিকই। তবে করোনা আবহে নিজে সুস্থ থেকে অন্যদের সুস্থ রাখাতেই আমাদের  আয়োজনে তাল কেটেছে করোনা।


এ জাতীয় আরো খবর