শনিবার, আগস্ট ১৫, ২০২০

র‌্যাব সদর দপ্তরে সাহেদ, চলছে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ

  • ঢাকা প্রতিনিধি :
image

ঢাকা : করোনাভাইরাস পরীক্ষা ও চিকিৎসায় প্রতারণাসহ নানা অভিযোগে গ্রেপ্তার রিজেন্ট হাসপাতাল ও রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদকে র‌্যাব সদর দপ্তরে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে  বিকেল ৩টায় তাকে নিয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করা হবে বলে সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন র‍্যাবের গোয়েন্দা শাখার পরিচালক লে. কর্নেল সারওয়ার-বিন-কাশেম।
বুধবার (১৫ জুলাই) ভোর ভোর সাড়ে ৫টা ১০ মিনিটে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর গ্রামের লবঙ্গবতী নদীর তীর সীমান্ত এলাকা থেকে অবৈধ অস্ত্রসহ তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সাহেদকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের তেজগাঁও বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। এর আগে সকাল ৮টা ১০ মিনিটে হেলিকপ্টারটি ঢাকা থেকে সাতক্ষীরার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।
বিমানবন্দর থেকে সাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‌্যাব সদরদপ্তরে নেয়া হয়। সেখানে জিজ্ঞাসবাদ শেষে বুধবারই তাকে উত্তরা পশ্চিম থানায় হস্তান্তর করা হবে। তবে সব আইনি প্রক্রিয়া শেষে থানার মাধ্যমে আজই আদালতে প্রেরণ করা হবে কিনা এ বিষয়ে র‌্যাবের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি।
গত ৬ জুলাই নানা অনিয়ম, প্রতারণা, সরকারের সঙ্গে চুক্তি ভঙ্গ, করোনা পরীক্ষার ভুয়া ফলাফল, সার্টিফিকেট দেওয়া ও রোগীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার অভিযোগে রিজেন্ট গ্রুপের দু’টি হাসপাতালে অভিযান চালায় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারোয়ার আলমের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে প্রতারণার সত্যতা মেলে। সেই সঙ্গে পাওয়া যায় গুরুত্বপূর্ণ আরও অনেক তথ্য। পরদিন গত ৭ জুলাই রিজেন্ট গ্রুপের মূল কার্যালয় এবং রাজধানীর উত্তরা ও মিরপুরের দ ‘টি হাসপাতাল সিলগালা করে দেওয়া হয়। রিজেন্ট কেলেঙ্কারি সামনে আসার পর থেকেই রিজেন্ট চেয়ারম্যান মহাপ্রতারক সাহেদ আত্মগোপনে চলে যান। তিনি সীমান্ত এলাকা হয়ে পার্শ্ববর্তী দেশে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।  কিন্তু র‌্যাবের নজরদারির কারণে পালাতে পারেননি তিনি।

 


এ জাতীয় আরো খবর