সোমবার, নভেম্বর ৩০, ২০২০

হিন্দুদের নিরাপত্তা দিন, শেখ হাসিনাকে কড়া বার্তা ভিএইচপির

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্কঃ
image

কলকাতা, ৭ নভেম্বর : বাংলাদেশের কুমিল্লায় হিন্দুদের ওপর আক্রমণের ঘটনায় ক্ষুব্ধ বিশ্ব হিন্দু পরিষদ (ভিএউচপি)। হাসিনা সরকারকে বার্তা দিয়ে হিন্দুত্ববাদী এই আন্তর্জাতিক সংগঠনের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক সুরেন্দ্র জৈন বলেন, হিন্দুদের ওপর আক্রমণের অর্থ ভারতকে আঘাত করা’। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ভিএইচপি-র দাবি, হিন্দুদের নিরাপত্তা দিন’। গত বুধবার ভারতের প্রভাবশালী বাংলা দৈনিক যুগশঙ্খের সাথে এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ দাবি জানান। 
তিনি বলেন, মৌলবাদ দমন ইস্যুতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ফ্রান্সকে সমর্থন করাকে কেন্দ্র করে হিন্দুদের ওপর আক্রমণ নেমে এসেছে বাংলাদেশে। এ প্রসঙ্গে সুর চড়িয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এক  কড়া বার্তায় বলেন, এ ধরনের ঘটনা বরদাস্ত করা হবে না।
যুগশঙ্খকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সুরেন্দ্র জৈন আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের কুমিল্লার মুরাদনগরের ঘটনা অত্যন্ত দুভার্গ্যজনক। আমি জানতে পেরেছি সোশ্যাল মিডিয়ায় ফ্র্যান্সকে সমর্থন করার ঘটনায় হিন্দুদের ঘর-বাড়িতে আগুন জ্বালানো, মন্দির ভাঙা, মহিলাদের ওপর অত্যাচার করা হল। এর থেকেই বোঝা যায় মুসলিম দেশে হিন্দুদের অবস্থা কি!’
ক্ষোভ উগরে ভিএইচপি-র সর্বভারতীয় সম্পাদক বলেন,‘ ফ্রান্সের ঘটনা সঠিক কি বেঠিক তা নিয়ে প্রশ্ন থাকতে পারে। কিন্তু তার জন্য বাংলাদেশের মুরাদনগরে, পাকিস্তানের করাচিতে হিন্দুদের ওপর আক্রমণ কেন? ফ্রান্সের বাহানায় আজকের এই ইসলামিক বর্বরতার বিরুদ্ধে যদি সমগ্র বিশ্ব এক হয় তাহলে কি হবে? ভারতে যদি হিন্দুরা একই আচরণ করে তখন সব সামলানো যাবে তো?’
হিন্দুদের ওপর আক্রমণ নিয়ে দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক মহলে সোচ্চার হয়েছে ভিএইচপি। এমনটা জানিয়ে সুরেন্দ্র জৈন বলেন, ‘ধারাবাহিকভাবে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় হিন্দুদের ওপর অত্যাচার হচ্ছে। বাংলাদেশে পরিকল্পিত ভাবে জেহাদিরা হিন্দু শূন্য করার পরিকল্পনা করেছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা মোদি সরকারকে জানিয়েছি। আমি প্রধানমন্ত্রী হাসিনাকে সর্তক করে বলছি, পাকিস্তান আপনাদের সঙ্গে একাত্তরে বর্বরতা দেখিয়েছে তা আপনারা ভুলে গিয়েছেন? আমরা কিন্তু ভুলিনি। সেদিন বাংলাদেশের হিন্দুরা সবচেয়ে বেশি অত্যাচারিত হয়েছিলেন। কিন্তু তাঁরা আপনাদের সঙ্গে থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী হাসিনা আপনি জেহাদিদের কর্মকাণ্ডে লাগাম টানুন’।
হিন্দুত্ববাদীর নেতার দাবি, ‘অভিযুক্তদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে শাস্তি দিয়ে বাংলাদেশ নিজেকে সভ্য দেশের পরিচয় দিক। হিন্দুদের নিরাপত্তা দিক। হিন্দুদের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তার ক্ষতিপূরণ শেখ হাসিনা সরকারকে দিতে হবে’।
পশ্চিমবঙ্গের বুদ্ধিজীবিদের মৌনতায় প্রশ্ন তোলেন সুরেন্দ্র জৈন। তিনি বলেন,‘ আরব, আমেরিকা, ইউরোপে অন্য ধর্মীয় গোষ্ঠীর ওপর নির্যাতন হলে বাংলার বুদ্ধিজীবিরা সরব হন। বাংলাদেশের ঘটনায় তারা নীরব কেন? বাংলাদেশের হিন্দুরা তাঁদের স্বজাতি হলেও তাঁরা মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছেন। এর নাম মানবতা! এসব বুদ্ধিজীবিরা কাদের দালালি করছেন? 


 

এ জাতীয় আরো খবর