শুক্রবার, আগস্ট ২৩, ২০১৯

আনন্দ-উল্লাস আর বর্ণিল আয়োজনে ডেট্রয়েট দুর্গা টেম্পলের বনভোজন

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২০১৯-০৭-১৬ ০৫:২৯:৩২
image

ট্রয় সিটি : আনন্দ-উল্লাস, বর্ণিল আয়োজন আর ছায়াঘেরা পরিবেশে গতকাল রোববার (১৪ জুলাই) অনুষ্ঠিত হলো ডেট্রয়েট দুর্গা টেম্পলের বার্ষিক বনভোজন। সকাল ১১ টার পর থেকেই মিশিগানের ডেট্রয়েট, হ্যামট্রাম্যাক, ওয়ারেন, স্টার্লিং হাইটস, ট্রয়, নোভাইসহ অন্যান্য সিটি থেকে বনভোজন প্রেমিকরা নিজস্ব গাড়ীতে করে ট্রয় সিটির ১৭৫৫ ইষ্ট লং লেইক রোডস্থ জেসি পার্কের প্যাভিলিয়ন এ পৌছতে শুরু করেন। বেলা বাড়ার সাথে সাথে লোকে লোকারণ্য হয়ে ওঠে বনভোজনস্থল। সকলের আন্তরিক অংশগ্রহণে এক আনন্দের মিলন মেলায় পরিণত হয় পিকনিক স্থল। অনুষ্ঠান শুরুর আগে চা চক্রে অংশগ্রহণ করেন সকলেই। 

চা চক্রের পর শুরু হয় খেলাধূলা। দৌড়, মেয়েদের বালিশ বদল, রশি টানাটানি, আড্ডা, তাস খেলায় অংশ নিয়ে পিকনিককে প্রাণবন্ত করে রাখেন সবাই। শিশু-কিশোর, নারী-পুরুষ সকলেই এসব আয়োজনে অংশ নিয়ে  পিকনিক পরিবেশকে আনন্দময় করে তোলেন। মহিলাদের রশি টানাটাননি ও বালিশ খেলা ছিল খুবই হাস্যরসে ভরা। বাচ্চা এবং বড় ছেলে-মেয়েদের খেলাগুলোও সবাই উপভোগ করেছে।

৫ থেকে ৭ বছরের শিশুদের (মেয়ে) দৌড় প্রতিযোগিতায় পিহু দাস ১ম, ক্রিসা চন্দ ২য়,  স্বর্ণিকা চৌধুরী ৩য়, একই বয়সের ছেলেদের  দৌড় প্রতিযোগিতায় শুভ ঘোষ ১ম, স্পর্শ বনিক ২য়,  স্বাগত পাল ৩য়, ৮ থেকে ১০ বছরের শিশুদের (মেয়ে) দৌড় প্রতিযোগিতায় রিয়া দত্ত ১ম, অর্পনা চন্দ ২য়, মৃত্তিকা সরকার ৩য়, একই বয়সের ছেলেদের  দৌড় প্রতিযোগিতায় সৌম্য পাল ১ম, মৃত্যুঞ্জয় ভট্রাচার্য্য ২য়,  সুনিত দত্ত ৩য়, ১১ থেকে ১৪ বছরের কিশোরীদের (মেয়ে) দৌড় প্রতিযোগিতায় শুক্তি হাওলাদার ১ম, শুক্তি শীল ২য়, অংকিতা চৌধুরী ৩য়, একই বয়সের ছেলেদের  দৌড় প্রতিযোগিতায় প্রান্ত দত্ত ১ম, আকাশ সূত্রধর ২য়,  প্রিয় দাস ৩য় স্থান অর্জন করেছেন।

 রশি টানাটানিতে বিজয়ীরা হলেন সুস্মিতা চৌধুরী, নীলিমা রায়, হৃদি, জয়ন্তী, সবিতা, চম্পা চৈত্রী, স্বর্ণা, বৈশালী দে, শেলী, দীপিকা, শিল্পী, লাকী, মৌমুমী, প্রতিভা, চন্দনা বানার্জী, অনুপা, অর্পণা, শংকরী চক্রবর্তী, মাধুরী চক্রবর্তী ও সোমা। মেয়েদের বালিশ বদলে ১ম জ্যোৎস্না  বিশ্বাস, ২য় রিপা সূত্রধর এবং স্নেহা চন্দ ৩য় হয়েছেন। মহিলাদের দৌড় প্রতিযোগিতায় সাথী সূত্রধর ১ম, রিপা সূত্রধর ২য় এবং গোপা চৌধুরী ৩য় হয়েছেন। মধ্যাহ্ন বিরতির পর এসব বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার প্রদান করা হয়। খেলা পরিচালনা করেন পুর্ণেন্দু চক্রবর্তী অপু, মনিষ ভট্টাচার্য্য ও পাপ্পু  দাস ।

দুপুর গড়াতেই সুস্বাদু মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন সকলেই। মেনু্যতে ছিল সাদা ভাত, মুরগীর রোস্ট,  খাশির রেজালা, সালাদ। সু-স্বাদু রান্নার আয়োজনে ছিলেন সুভাষ চক্রবর্তী, পুর্ণেন্দু চক্রবর্তী অপু, কমলেন্দু পাল, মহেশ সুত্রধর, সুব্রত ধর, জিতেন গোপ ও সমীর ঘোষ। এছাড়া সারাদিন তরমুজ, বিস্কিট, চা, কফি এবং ঠান্ডা পানীয়তে নিজেদের সতেজ রাখেন অতিথিরা।

অনুষ্ঠানে শেষ পর্যায়ে বনভোজনে আগত অতিথিবৃন্দ সংক্ষিপ্ত বক্তব্য প্রদান করেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মন্দিরের প্রেসিডেন্ট রতন হালদার। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অজিত দাস, অবিনাশ চৌধুরী, আসন্ন ওয়ারেন সিটির নির্বাচনে সিটি কাউন্সিলর প্রার্থী শাহাব আহমদ খাজা, হেনা দাস, তপন শিকদার, অলক চৌধুরী, দেবাশীষ দাস, কামাল উদ্দিন, ডেট্রয়েট দুর্গা টেম্পলের প্রিস্ট পুর্ণেন্দু চক্রবর্তী অপু ও সুভাষ চক্রবর্তী। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন টেম্পলের কালচারাল সেক্রেটারী সৌরভ চৌধুরী। সভায় বনভোজনে বিশেষ অবদান রাখায় সুভাষ চক্রবর্তী, জিতেন গোপ, চন্দনা বানার্জী, কমলেন্দু পাল, মহেশ সুত্রধর, সুব্রত ধর ও সমীর ঘোষকে বিশেষভাবে পুরষ্কৃত করা হয়েছে।

সবশেষে ছিল আকর্ষণীয় র‌্যাফেল ড্র। পুরষ্কারের মধ্যে ছিল টেলিভিশন, মাইক্রোওভেন, বাই সাইকেলসহ আকর্ষণীয় অনেক পুরষ্কার। প্রথম পুরষ্কার টেলিভিশন স্পন্সর করেছে দেশী বাজার। এছাড়া পুরষ্কার স্পন্সর করেন মিশিগানের বাংলা স্কুল শিকড়, সুপ্রভাত মিশিগান, সুধাংশু দেব, সুবীর পাল, বিপ্লব চৌধুরী, অজিত দাস, সুজিত শীল, রাজীব দত্ত, শাহাব আহমেদ খাজা ও রতন হাওলাদার । সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন প্রদীপ চৌধুরী, নীতেশ সুত্রধর, সমরেশ দাস, সজল সুত্রধর ও উজ্জল সুত্রধর। 


এ জাতীয় আরো খবর