শুক্রবার, আগস্ট ২৩, ২০১৯

আগামীকাল নাগ পঞ্চমী, এই উপাচার দিয়ে করুন পুজো, আসবে অর্থ, ফিরবে প্রাপ্য সম্মান

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্কঃ
  • ২০১৯-০৮-০৪ ২১:৫০:৪২
image

শ্রাবণ মাসের শুক্ল পঞ্চমী তিথিটি হিন্দু সম্প্রদায়ের কাছে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এদিন নাগ পঞ্চমী। পৌরাণিক বিশ্বাস অনুযায়ী, নাগ লোক বা পাতাল থেকে নাগ বা সর্পকুল মানবের উদ্দেশে এদিন আশিস প্রেরণ করেন। পারিবারিক সমৃদ্ধি ও সার্বিক কুশলের জন্য এই আশীর্বাদকে অত্যন্ত জরুরি বলে মনে করেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।
এই সর্পোপাসনার উৎস কোথায়, খোঁজ নিতে বসলে প্রথমেই চোখ যায় পুরাণ ও মহাকাব্যের দিকে। তার পরে আসা যেতে পারে এর সামাজিক ও নৃতাত্ত্বিক ব্যাখ্যায়।  
এ বছর নাগপঞ্চমী তিথি পড়েছে ৫ আগস্ট ৷ অর্থাৎ আগামীকাল সোমবার ৷ একই সঙ্গে আগামীকাল শ্রাবণ মাসের তৃতীয় সোমবার ৷ মহাদেবকে তুষ্ট করার সবচেয়ে পবিত্র তিথি ৷ আর সব মিলিয়ে এদিনটি হল অত্যন্ত মাহেন্দ্রক্ষণ ৷ আর বিশেষ করে নাগপঞ্চমীর দিন কয়েকটি ছোট্ট কাজ করলেই ভাগ্যের সমস্ত দোষ কেটে যায় ৷ এরই সঙ্গে আসে অর্থ ও সম্মান ৷ 
এই দিনটিতে কয়েকটি উপাচার দিয়ে নাগপঞ্চমীর দিন পুজো করার বিধি রয়েছে ৷ ভারতে নাগপঞ্চমী এক অতি জনপ্রিয় উৎসব। বিশেষত মধ্যভারতে, নাগ এক সর্বজনমান্য দেবতা। নাগপুরের নামকরণই এর প্রমাণ। এখানে নাগোবা মন্দিরে এদিন বিশেষ পূজা হয়। গোটা উত্তর ভারত জুড়ে পালিত হয় নাগপঞ্চমী। কাশীর কুস্তির আখড়াগুলিতে সর্পোপাসনা দেখবার মতো। দক্ষিণ ভারতে পূজা শুরু হয় অমাবস্যার দিন। পঞ্চমী হল মূল পূজার দিন। নেপালে গরুড়ের সঙ্গে নাগকুলের যুদ্ধ নাটকের আঙ্গিকে অভিনীত হয়।  
নাগদেবতার মূর্তির সামনে এদিন রাখা হয় দুধ। রাখা হয় চন্দন, হলুদ ও সিঁদুর। মূর্তির সামনে জ্বালানো হয় কর্পূরের প্রদীপ। পাঠ করা হয় নাগপঞ্চমী ব্রতকথা (কদ্রু-বিনতার কাহিনি, জন্মেজয়ের সর্পযজ্ঞের আখ্যান)। 


এ জাতীয় আরো খবর