মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯

অরুণা লড়েছে প্রত্যয়ের জোরে, কর্কট জিতেছে টাইব্রেকারে

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২০১৯-০৯-১৪ ২১:২৭:০২
image

[ সুজিত কুসুম পাল। তিনি চট্রগ্রাম থেকে প্রকাশিত অধুনালুপ্ত দৈনিক স্বাধীনতা’র প্রাক্তন ফিচার এডিটর। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি সাহিত্যে পড়াশোনা করেছেন। বর্তমানে কানাডা প্রবাসী। বসবাস করেন টরোন্টো, অন্টারিওতে। সম্প্রতি তাঁর বউমা অর্থাৎ ভাগ্নে স্ত্রী অরুণা পাল পরলোকগমন করেছেন। এ নিয়ে তিনি গত মঙ্গলবার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। যে কোন মৃত্যু বেদনার। আর তা যদি হয়, নিকটাত্মীয় স্বজন কিংবা বন্ধু-বান্ধবের -এক্ষেত্রে আমরা প্রিয়জনকে চিরতরে হারিয়ে শোকে কাতর হয়ে পড়ি। মৃত্যু সংবাদগুলো এখন পর্যন্ত গতানুগতিক ধারাই লেখা হয়ে থাকে। কিন্তু  তিনি এই গন্ডি পেরিয়ে এক ব্যতিক্রমী লেখনীর মাধ্যমে তৈরী করেছেন এক অন্য রকম মৃত্যু সংবাদ। আলোচিত স্ট্যাটাসটিতে বেদনার ভারাক্রান্ত মনের আবেগ ও অনুভূতির প্রকাশ ঘটেছে। যার শিরোনাম দেয়া হয়েছে ‘অরুণা লড়েছে প্রত্যয়ের জোরে, কর্কট জিতেছে টাইব্রেকারে’  । 
অরুণার অকাল মৃত্যুতে আমরাও ব্যথিত এবং শোকাহত। সেই সঙ্গে তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি। সুপ্রভাত মিশিগানের পাঠকদের উদ্দেশ্যে সুজিত কুসুম পাল এর এই স্ট্যাটাসটি হুবহু প্রকাশ করা হলো ]

কানাডা : সময় জেগে থাকে তার আপন অলিন্দে, নেচে বেড়ায় নিজের কক্ষপথের সীমানা জুড়ে। সময়ের এই নৃত্যের দৃশ্যমানতা নেই। আমরাই কেবল সময়ের বুকে অদৃশ্য আঁচড় কেটে এগিয়ে যাই; কেউ বহুদূর, কেউ কিছুদূর। চলতে চলতে যাপন করি জীবন, যাপিত হয় সময়। চলতে গিয়ে কখনো কখনো থেমে যেতে হয় যানজটে, কখনো বা ট্র্যাফিক সিগন্যালে। সবুজ বাতির ঈশারায় খুলে যায় জট, গতি নেয় যান; আনন্দ আর বেদনায় জেগে থাকে প্রাণ। অপেক্ষার সারি থেকে গতি নেয় ধীরে ধীরে লাশের গাড়ি; পেছনে বাজায় ভেঁপু বরযাত্রীর গাড়ি। চলমান যান একদিন থেমে যায় সময়ের অন্তর্বাসে; নতুনের হয় আবাসন অনায়াসে। কেউ হয় ‘মা’, কেউ হারায় ‘মা’ হাসপাতালের ক্যাম্পাসে। প্রাপ্তির আনন্দ আর হারানোর বেদনাকে সঙ্গী করে তবু আমরা ছুটছি সময়কে অতিক্রম করে।


বউমা অরুণা, আমাদের বড়ো ভাগ্নে রঞ্জনের স্ত্রী, এইভাবেই তো সময়ের ফলক পাড়ি দিতে দিতে অনেক ক্লান্তি নিয়ে থেমে গেলো। অনারোগ্য কর্কটরোগের সাথে প্রাণপণ লড়াই চালিয়েছে অসাধারণ প্রাণশক্তির অধিকারী এই মেয়েটি। রঞ্জনের ভালোবাসা, সেবা আর সার্বিক প্রচেষ্টার জোরে কর্কটের সাথে অরুণার লড়াইটি কলকাতার টাটা হাসপাতালে নির্দিষ্ট সময় শেষে ড্র হলেও শেষ পর্যন্ত চট্টগ্রামে টাইব্রেকারে জিততে হয়েছে প্রতিপক্ষকে।
অরুণার প্রয়াত আত্মার শান্তি কামনায় আজ চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে তাঁর পারলৌকিক শ্রাদ্ধানুষ্ঠান।
১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
সংযুক্তিঃ
অত্যন্ত বেদনাকাতর হৃদয় নিয়ে জানাতে হচ্ছে, গত পরশু অরুণার শ্রাদ্ধানুষ্ঠান শেষ হতে না হতেই গতকাল আমাদের ছোটো ভাগ্নে রঞ্জনের ছোটো ভাই নিউটন (অরুণার দেবর) চলে গেছে অরুণার খোঁজে অরুণার পথে।


এ জাতীয় আরো খবর