মঙ্গলবার, অক্টোবর ৪, ২০২২

বাংলা টাউনে মঞ্চ মাতালেন বেবী নাজনীন

  • সৈয়দ আসাদুজ্জামান সুহান :
image

ডেট্রয়েট, ২৯ আগস্ট : যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিতীয় বৃহত্তম বাঙালি অধ্যুষিত মিশিগান রাজ্যের ডেট্রয়েট বাংলা টাউনের জেইন পার্কে অনুষ্ঠিত ২১তম নর্থ আমেরিকান বাংলাদেশি ফেস্টিভালে মঞ্চ কাঁপিয়ে গানে গানে হাজার হাজার বাঙালির মন মাতালেন বাংলাদেশের ব্ল্যাক ডায়মন্ড খ্যাত জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন। এছাড়াও মঞ্চ দাপিয়ে গান গেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী নীলিমা শশী ও শাহ মাহবুব।


নর্থ আমেরিকান বাংলাদেশি ফেস্টিবলটি মিশিগান রাজ্যে বসবাসরত বাঙালিদের বৃহত্তম মেলা হিসেবে অভিহিত করা হয়। প্রতিবছর ধারাবাহিক ভাবে এই  ফেস্টিভাল অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। গত ২৬ আগষ্ট থেকে শুরু হয়ে ২৮ আগষ্ট পর্যন্ত টানা তিনদিন ব্যাপি এবারের ২১তম আয়োজন আনন্দ উৎসবে সম্পন্ন হয়েছে। 

বাংলা টাউনের জেইন পার্কে হাজার হাজার প্রবাসী বাঙালির ঢল নেমে ছিল। যা দেখে বেবী নাজনীন মনের উচ্ছ্বাসে বলেছিলেন, 'এত বাঙালি একসাথে দেখে আমার কাছে মনে হচ্ছে আমেরিকার মাটিতে নয়, আমি বাংলাদেশের কোথাও আছি। এ যেন একখন্ড বাংলাদেশ।' তারপর 'বাংলাদেশ' শিরোনামে একটি দেশাত্মবোধক গান পরিবেশনের মধ্য দিয়ে মঞ্চে গান গাওয়া শুরু করেন তিনি।


ফেস্টিভালে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বিভিন্ন ধরণের স্টল বসে ছিল। রকমারি খাবারের স্টলের পাশাপাশি দেশিয় মসলা, বুটিক শিল্প, হস্তশিল্প ও মৃৎ শিল্পের স্টল ছিল চোখে পড়ার মত। এসব স্টল ঘিরে ক্রেতাদের ছিল উপচে পড়া ভিড়। শুক্রবারে মেলা শুরু হলেও সেদিন দর্শনার্থীদের উপস্থিতি ছিল কম। শনি ও রবিবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন থাকায় বিকাল থেকেই বাংলা টাউনের জেইন পার্কে হাজার হাজার বাঙালিদের উপস্থিতিতে মেলাটি জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছিল। অনেকেই এই ফেস্টিবলকে বাঙালিদের বৃহত্তম মিলনমেলা হিসেবেও বলে থাকেন।


এবারের  ফেস্টিভালের সবচেয়ে আকর্ষণ ছিল মঞ্চে বিকাল সাতটা থেকে শুরু করে রাত বারোটা পর্যন্ত সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। উপস্থিত হাজারো দর্শক শাহ মাহবুবের কন্ঠে বাউল শাহ আব্দুল করিমসহ আরও বিভিন্ন বাউল শিল্পীর জনপ্রিয় বাউল গানে মন মাতালেন। এছাড়াও নীলিমা শশীর কন্ঠে জনপ্রিয় আধুনিক বাংলা গানে নিজেও যেমন নাচলেন, তেমনি উপস্থিত দর্শকদের নাচিয়েছেন।


ফেস্টিভালের শেষ দিন গতকাল রোববার বাতে এসেছিলেন সবচেয়ে বড় আকর্ষণ বাংলাদেশের জনপ্রিয় কন্ঠশশিল্পী বেবী নাজনীন। এতে উপস্থিত দর্শকদের সংখ্যা ছিল পাঁচ হাজারের অধিক। পুরো মঞ্চ কাঁপিয়ে তিনি গান পরিবেশন করেছিলেন আর উপস্থিত দর্শকরাও গানের তালে নেচে গেয়ে ব্যাপক উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে।


সবশেষে মেলার অন্যতম আকর্ষণ র‍্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। র‍্যাফেল ড্রতে একটি গাড়ি, ডেট্রয়েট-ঢাকা-ডেট্রয়েট রিটার্ন টিকেট, মোটর সাইকেল, টেলিভিশন সহআকর্ষণীয় অনেক পুরস্কার ছিল।


এ জাতীয় আরো খবর