সোমবার, নভেম্বর ২৮, ২০২২

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ঋষি সুনাক

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্ক :
image

লন্ডন, ২৫ অক্টোবর : ইতিহাস গড়ে ব্রিটেনের  প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিলেন ঋষি সুনক। প্রথা মতো আজ মঙ্গলবার  বাকিংহাম প্রাসাদে গিয়ে রাজা ততৃীয় চার্লসের সঙ্গে দেখা করেন এবং নিয়োগপত্র নেন তিনি। এরপর প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর তথা বাসভবন ১০ ডাউনিং স্ট্রিটের সামনে সংক্ষীপ্ত বক্তৃতা করেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ঋষি সুনক।
তিনি বলেন, আমি আমাদের দেশকে কথায় নয় কাজ দিয়ে ঐক্যবদ্ধ করব। আমি আপনাদের জন্য দিন-রাত কাজ করে যাব। একইসঙ্গে তিনি আশ্বাস দিয়েছেন যে, তাঁর সরকারের প্রতিটি স্তরে সততা, পেশাদারিত্ব এবং জবাবদিহিতা থাকবে। পাশাপাশি নিজের বক্তৃতায় বরিস জনসনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন তিনি। সেইসঙ্গে একটি শক্তিশালী এনএইচএস, আরও ভালো স্কুল, নিরাপদ রাস্তা এবং সশস্ত্র বাহিনীকে সমর্থনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ঋষি। তাঁর কথায়, আমি দায়িত্ব নিতে ভয় পাই না। গত সপ্তাহেই শপথ নেওয়ার মাত্র ৪৫ দিনের মাথায় পদত্যাগ করেন লিজ ট্রাস। বক্তৃতা দিতে গিয়ে ঋষি সুনকের মুখে উঠে এল পূর্বসূরি লিজ ট্রাসের নামও। অর্থনীতি সম্বন্ধে তাঁর পদক্ষেপগুলি কিছুক্ষেত্রে ভুল ছিল, তবে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয়, এমনটাই মনে করেন সুনাক। অন্যদিকে, বিদায়ী ভাষণেও সুনাকের প্রতি পূর্ণ সমর্থন করার বার্তা দিয়েছেন ট্রাস।
ইউক্রেন যুদ্ধ দ্রুত শেষ হওয়া উচিত, ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথম বক্তৃতায় এমনই মন্তব্য করলেন ঋষি সুনক। তিনি ইউক্রেনকে রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘এটি একটি ভয়ানক যুদ্ধ, যা দ্রুত শেষ হওয়ায় উচিত। ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন বিশ্ব অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলেছে।
উল্লেখ্য, গত ৪৯ দিনে ব্রিটেনের মতো দেশে প্রধানমন্ত্রীর গদি রদবদল হল তিন জনের মধ্যে। বরিস জনসন পদত্যাগ করতেই তাঁর জায়গায় আসেন লিজ ট্রাস। দিনকয়েকের জন্য মসনদে বসলেও শেষমেশ ইস্তফা দিতে বাধ্য হন লিজ ট্রাস। পদত্যাগের পর  লিজ ট্রাসের স্থলাভিষিক্ত হলেন কনজারভেটিভ পার্টির নেতা ঋষি। রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর ব্রিটেনের রাজতন্ত্রের মসনদে বসে প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ঋষিকে নিয়োগ দিয়েছেন রাজা তৃতীয় চার্লস। গত ৮ সেপ্টেম্বর মারা যাওয়ার মাত্র দু’দিন আগে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ট্রাসকে নিযুক্ত করেছিলেন।
ভারতীয় বংশোদ্ভূত তরুণ ঋষি সুনাকের জন্ম সাউদাম্পটন শহরে। হ্যাম্পশায়ার ও উইনচেস্টার কলেজে স্কুল জীবন শেষে অক্সফোর্ডের লিংকন কলেজ থেকে ২০০১ সালে স্নাতক হন। পরে ২০০৬ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ করেন। সেখানেই স্ত্রী অক্ষতা মূর্তির সঙ্গে তার আলাপ । ২০০৯ সালে বেঙ্গালোরে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। ২০১৪ সালে রাজনীতিতে পা রাখেন তিনি। সে বছর রিচমন্ড থেকে কনজারভেটিভ পার্টির হয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্য নির্বাচিত হন। ব্রিটেনের বিত্তবানদের মধ্যে অন্যতম ঋষি।


এ জাতীয় আরো খবর