সোমবার, জানুয়ারী ২৫, ২০২১

বঙ্গবন্ধুকে মাইরা ফেলাইছে ‘বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র’ : শেখ সেলিম

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্কঃ
image

ঢাকা, ৪ ডিসেম্বর : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য  শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেছেন, স্বাধীনতা বিরোধী মৌলবাদীরা ষড়যন্ত্র করছে। এরা সেই শক্তি যারা মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানিদের সহায়তা করেছে। মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা এবং মা-বোনদের সম্ভ্রমহানি করতে সহায়তা করেছে। আর কোনো সাম্প্রদায়িকতা যেন বাংলাদেশে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে না পারে, সেজন্য যুবলীগকে সোচ্চার থাকতে হবে। মৌলবাদীদেরকে কঠোরভাবে দমন করতে হবে। আজ  শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) বিকেলে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, লেখক-সাংবাদিক, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শহীদ শেখ ফজলুল হক মনি’র ৮১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ভার্চুয়ালি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। শেখ সেলিম নিজের বনানীর বাসভবন থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন।
তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার পরে বঙ্গবন্ধু দেশ গড়ার লক্ষে যখন কাজ শুরু করলেন তখন অতিবিপ্লবীরা জাসদ সৃষ্টি করে বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য বঙ্গবন্ধুর বিরোধিতা করে। তারা ছাত্রলীগকে বিভক্ত করে। তারা আসলে বঙ্গবন্ধু এবং আওয়ামী লীগের ভালো চায়নি। বঙ্গবন্ধু দেশ স্বাধীন করেছিল কিন্তু সুষ্ঠভাবে যাতে পরিচালনা করতে না পারে; আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রে ও তাদের ইন্ধনে এই সব বিপ্লবীরা বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রে আইছিল। ’জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, “স্বাধীনতাবিরোধী আর ‘এরা’ মিলিয়া বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করল, মনি ভাইকে হত্যা করল, চার নেতাকে হত্যা করল। কিন্তু তাদের বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র বঙ্গবন্ধু মারা যাওয়ার পর শেষ হইয়া গেছে। এখন তাদের বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র কোথায়? বঙ্গবন্ধুকে মাইরা ফেলাইছে বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র।”  তিনি বলেন, ‘১৫ আগস্ট যখন বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয় তখন কর্নেল তাহের ও তার ডেপুটি হাসানুল হক ইনু রেডিওতে যাইয়া তাদের সমর্থন জানায়। সুতরাং তাদের বিপ্লব বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্র, এটা একটা গভীর ষড়যন্ত্র ছিল। তাদের কারণে দেশ ৫০ বছর পিছিয়ে গেছে।  সুতরাং কথা অনেকে আছে বলতে চাই না। এই রহস্য একদিন উদঘাটন হবে।
শেখ সেলিম বলেন, মৌলবাদী ও ধর্মান্ধরা ধর্মের নামে অপরাজনীতি শুরু করেছে। এদের অতীত খুঁজে দেখতে হবে। একাত্তরে এদের ভূমিকা কি ছিল। স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির মদদে মৌলবাদীরা ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে মৌলবাদীদের সাম্প্রদায়িকতার ষড়যন্ত্র রুখতে যুবলীগকে সোচ্চার থাকতে হবে।
এসময় বড় ভাই শহীদ শেখ মনির জন্মদিনে বিভিন্ন স্মৃতিচারণ করেন তার ছোট ভাই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম। ছাত্রজীবন থেকে শেখ মনির রাজনৈতিক জীবনের নানা ঘটনার কথাও তুলে ধরেন তিনি।
এর আগে, যুবলীগের পক্ষ থেকে শহীদ শেখ মনির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ধানমন্ডিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে এবং সকাল ১০টায় বনানী কবরস্থানে শহীদ শেখ ফজলুল হক মনিসহ সকল শহীদের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল, অসহায় দুঃস্থদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ ও সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়।
বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ভার্চুয়াল আলোচনায় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ, প্রধান আলোচক হিসবে সভাপতিমন্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম বক্তব্য রাখেন। সভাপতিত্ব করেন যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সঞ্চালনা করেন-সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল।


এ জাতীয় আরো খবর