সোমবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২১

অস্থিরতার মধ্যে মিশিগানের কংগ্রেস ভবনে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েনের দাবি

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্কঃ
image

ল্যান্সিং, ১২ জানুয়ারী : ল্যান্সিং সিটি কাউন্সিলের সভাপতি পিটার স্পাডাফরফ বলেছেন, মিশিগানকে "সবচেয়ে খারাপের জন্য প্রস্তুত থাকা দরকার। এজন্য তিনি রাজধানীর কংগ্রেস ভবনে সম্ভাব্য সশস্ত্র বিক্ষোভের আগে ন্যাশনাল গার্ডকে মোতায়েনের দাবি জানিয়েছেন।
মঙ্গলবার ল্যান্সিংয়ের মেয়র অ্যান্ডি শোরকে লেখা চিঠিতে স্পাডাফোর শোরকে গভর্নর গ্রেচেন হুইটমারকে মিশিগান ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করার জন্য অনুরোধ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, প্রথম সংশোধনী কার্যক্রম শান্তিপূর্ণভাবে বজায় রাখতে এবং আমাদের বাসিন্দাদের নিরাপদ রাখতে এটা করা প্রয়োজন।
তিনি বলেন, যে তথ্য পাওয়া গেছে তাকে গুরুত্বের সঙ্গে নেওয়া উচিত। আমরা গত সপ্তাহে ওয়াশিংটন ডিসির পরিস্থিতি হতে দিতে পারি না। জনগনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের সর্বোত্তম পদক্ষেপ নিতে হবে। গত বুধবার ইলেকটোরাল কলেজের ভোট গণনা করতে যৌথ অধিবেশন চলাকালে কংগ্রেস ভবনে হামলা চালায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সমর্থকরা। এজন্য ক্যাপিটল হিল খালি করতে হয়েছিল। এতে পাঁচজন নিহত হয়েছিল। ফেডারেল তদন্ত ব্যুরো এ নিয়ে তদন্ত অব্যাহত রেখেছে। একটি সাক্ষাৎকারে শোর বলেছিলেন, ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন "অবশ্যই শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি বজায় রাখার একটি বিকল্প"। মেয়র বলেছেন, তিনি মঙ্গলবার বা বুধবার কোনও সিদ্ধান্ত নেবেন বলে আশাবাদী এবং আরো জানান, কর্মকর্তারা তাদের প্রাপ্ত তথ্য পর্যবেক্ষণ করছেন।
নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের শপথ নেওয়ার দিন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রড়ে সশস্ত্র বিক্ষোভের ব্যাপারে সতর্ক করেছে মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো এফবিআই। ট্রাম্প সমর্থক একাধিক সশস্ত্র গোষ্ঠী ও কট্টর ডানপন্থিরা যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অঙ্গরাজ্যের ক্যাপিটল ও ওয়াশিংটন ডিসিতে জড়ো হওয়ার পরিকল্পনা করছে বলে তারা জানতে পেরেছে। ট্রাম্পপন্থিদের কর্মসূচির মধ্যে ১৭ জানুয়ারি দেশজুড়ে বিভিন্ন শহরে সশস্ত্র বিক্ষোভ ও ২০ জানুয়ারি বাইডেনের অভিষেকের দিন ওয়াশিংটন ডিসিতে সমাবেশের পরিকল্পনা রয়েছে।
এফবিআইয়ের এক অভ্যন্তরীণ বুলেটিনে সতর্ক করে বলা হয়েছে, ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত ক্ষমতাসীন ট্রাম্পকে যদি মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে সরিয়ে দেওয়া হয় কিংবা তিনি যদি বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানে না যান তাহলে বিভিন্ন রাজ্য, স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় আদালত ভবনে ঝড়ের বেগে ঢুকে সেগুলো দখল করে নিতে একটি গোষ্ঠী ডাকও দিয়েছে। সশস্ত্র বিক্ষোভের ব্যাপারে সতর্ক করার পর বিভিন্ন রাজ্যের আইনসভায় নিরাপত্তা জোরদার করতে বলা হয়েছে। এদিকে জো বাইডেন জানিয়েছেন, তিনি ক্যাপিটল ভবনের বাইরে শপথ নিতে মোটেও ভীত নন। বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠানে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ন্যাশনাল গার্ডের ১৫ হাজার সদস্যকে মোতায়েন করা হতে পারে। সহিংসতায় উস্কানি ও উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে এমন একাউন্টগুলোকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো। টুইটার জানিয়েছে তারা কিউঅ্যানন ষড়যন্ত্র তত্ত্বের প্রসারে ব্যবহৃত ৭০ হাজার একাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। ফেসবুকও একই ধরণের উদ্যোগ নিচ্ছে।

Source & Photo: http://detroitnews.com


এ জাতীয় আরো খবর