বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২৫, ২০২১

ইউএম ক্যাম্পাসের সব শিক্ষার্থীর প্রতি সপ্তাহে করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্কঃ
image

ছবিতে ইউনির্ভাসিটি অব মিশিগান ক্যাম্পাসের একাংশ। (Photo : John T. Greilick, The Detroit News) 

ল্যান্সিং, ৮ ফেব্রুয়ারি : মিশিগান ইউনিভার্সিটির (ইউএম) কর্মকর্তারা সোমবার ঘোষণা করেছেন, সব শিক্ষার্থীর করোনা ভাইরাস পরীক্ষা বাধ্যতামূলক। ক্যাম্পাসে বসবাসকারী বা ক্লাসে অংশ নেওয়া স্নাতক এবং পেশাদার শিক্ষার্থীসহ সকল শিক্ষার্থীর সাপ্তাহিক পরীক্ষা শুরু হবে ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে।
কর্মকর্তারা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে একটি বার্তায় বলেছেন, ক্যাম্পাসে আক্রান্তের সংখ্যা এবং কন্ট্যাক্ট ট্রেসিংয়ের বিষয়টিতে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। কারণ ধারাবাহিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে যে স্নাতক এবং স্নাতক স্নাতক শিক্ষার্থীদের মধ্যে সামাজিক সমাবেশ বৃদ্ধি হওয়ায় আমাদের সম্প্রদায়ের মধ্যেও বাড়ছে।  শুক্রবার পর্যন্ত করোনা ভাইরানের নতুন ধরণ বি.১.১.৭ এ ওয়াশটানাউ কাউন্টি ২৩ জন সনাক্ত করা হয়েছে। ওয়েইন কাউন্টিতে ছয়টি এবং কেন্ট কাউন্টিতে একজনের সন্ধান পাওয়া গেছে।
গত ১৬ জানুয়ারি নতুন ধরনের করোনা পাওয়া যায় একজন ইউএম শিক্ষার্থী যুক্তরাজ্য থেকে ফিরে এসে আন আরবার খুচরা দোকানে কেনাকাটা করতে যাওয়ার পরে। সব আক্রান্তের ঘটনা প্রথম আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে সংযুক্ত নয়, তবে সবগুলি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সাথে যুক্ত রয়েছে বলে ওয়াশটানাউ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে। ওয়াশটানাউ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগের মেডিকেল ডিরেক্টর ডাঃ জুয়ান লুইস মার্কেজ এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেছেন, "আমরা আক্রান্তের পরিচিত গুচ্ছটি ধারণ করার জন্য কাজ করছি এবং আমরা সবাইকে কার্যকর প্রতিরোধ কৌশল কার্যকর করতে এবং প্রয়োজনে পরীক্ষা করার জন্য অনুরোধ করছি।"
সাপ্তাহিক পরীক্ষার আওতায় ইউএম হাউজিংয়ে বসবাসকারী, যে কোনও ব্যক্তি কোর্সে পাঠদানের জন্য নিবন্ধিত, ক্যাম্পাসে আসা কর্মচারী, ক্যাম্পাসে গবেষণা পরিচালনা করা, সুযোগ-সুবিধা ব্যবহারের জন্য বা খাওয়ার জন্য ক্যাম্পাসে যোগ দিতে হবে এমন প্রত্যেকে পড়বে। পরীক্ষা ইউএম কমিউনিটি স্যাম্পলিং এবং ট্র্যাকিং প্রোগ্রামের মাধ্যমে পরিচালিত হবে। শিক্ষার্থীরা অনলাইনে নিবন্ধন করতে পারবেন। যারা এর আগে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষায় পজিটিভ হয়েছেন তাদেরকে ৯০ দিনের মধ্যে পরীক্ষা করতে হবে না।
গত বছরের ১০ মার্চ মিশিগানে প্রথম দুইজন করোনা রোগী পাওয়া যায়। এদের ওয়েন্ট কাউন্টিতে (পুরুষ) এবং একজন অকল্যান্ড কাউন্টিতে (নারী)। তারা দুইজনেরই ভ্রমণের ইতিহাস ছিল। শনিবার পর্যন্ত মিশিগানে ৫,৬৭৬৪৮ জন সংক্রমিত এবং ১৪, ৮৯৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত বছর এই সময়ের মধ্যে অন্য রাজ্যেও আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছিল। খুবই অল্প সময়ের মধ্যে এই ভাইরাস মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ে। রবিবার আমেরিকায় করোনায় প্রাণ গেছে ৪,৬২৮৪৫ জনের এবং ২৬.৯ মিলিয়নের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি এই তথ্য জানিয়েছে। বিশ্বব্যাপী ১০৫.৮ মিলিয়নেরও বেশি লোক সংক্রমিত এবং ২.৩ মিলিয়নেরও বেশি মারা গেছে। করোনার নতুন ধরনের আরো বেশি ছড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে।
শুক্রবার পর্যন্ত মিশিগানের ওয়াশটানাও এবং ওয়েন কাউন্টিগুলিতে কোভিড-১৯  এর বি১১৭ এর মোট ২৮জন আক্রান্তের তথ্য পাওয়া গেছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। মিশিগান স্বাস্থ্য ও হিউম্যান সার্ভিসেস বিভাগের মুখ্য স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা : জোনেইগ খালদুন বৃহস্পতিবার ব্রিফিংয়ে বলেন, এই ধরনটি নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। কারণ নতুন ধরণগুলো দ্রুত ছড়ায়। এর ফলে হাসপাতালে ভর্তি এবং মৃতের সংখ্যা দ্রুত বাড়তে পারে।

Source & Photo: http://detroitnews.com


এ জাতীয় আরো খবর