শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০২১

‘কৃষ্ণাঙ্গদের মধ্যে খুব কমই টিকা পেয়েছেন’

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্কঃ
image

ছবি :  ওয়েইন স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের নার্সিংয়ের শিক্ষার্থী জেনা হেলসিং টিসিএফ সেন্টারে কারেন স্ট্রাউডকে মডার্না ভ্যাকসিন দিচ্ছেন। কারণ ডেট্রয়েটের পোপ ফ্রান্সিস সেন্টার বৃহস্পতিবার ১০ ফেব্রুয়ারী গৃহহীন ১০০ জন লোককে তাদের দ্বিতীয় ডোজ দিয়েছিল। (Photo : Max Ortiz, The Detroit News)

ডেট্রয়েট, ২৪ ফেব্রুয়ারি : মঙ্গলবার প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, মিশিগানে আফ্রিকান আমেরিকানদের তুলনায় দ্বিগুন শ্বেতাঙ্গ কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ পেয়েছেন। রাজ্যের পরিসংখ্যান বলছে, যারা টিকা নেওয়া শুরু করেছেন তারা এক ডোজ নিয়েছেন। আর যারা পুরো টিকা নিয়েছেন তারা দুই ডোজ পেয়েছেন। এর মধ্যে তুলনা করা হয়েছে।
শ্বেতাঙ্গদের মধ্যে টিকা নেওয়া শুরু করা এবং সম্পূর্ণ করার হার যথাক্রমে (৭.৯% এবং ৪.৭%)। আমেরিকান ইন্ডিয়ান বা আলাস্কান নেটিভ এর ক্ষেত্রে (৫.৪% এবং ২.৮%), এশিয়ান, নেটিভ হাওয়াইয়ান বা প্যাসিফিক দ্বীপপুঞ্জের ক্ষেত্রে (৫.০% এবং ৩.৬%)। মিশিগান স্বাস্থ্য ও মানবসেবা বিভাগের মতে এরপর রয়েছে আফ্রিকান আমেরিকান বাসিন্দা (৪.১% এবং ১.৬%)।
প্রতিনিধিরা এক বিবৃতিতে বলেছিলেন, "নিরাপদ ও কার্যকর কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন কত মানুষ পেয়েছেন সেটা জানতেই এই জরিপ চালানো হয়েছে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের প্রধান প্রধান নির্বাহী ও প্রধান উপাধ্যক্ষ ডাঃ  জোনেইগ খালদুন বলেছিলেন ,"যারা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে আছেন তাদের নিরাপদ এবং কার্যকর  কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন দ্বারা সুরক্ষিত নিশ্চিত করা মিশিগানের জন্য সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার"।
সোমবারের মাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, ১,২৫২,৪৯৭ জন কমপক্ষে একটি ডোজ ভ্যাকসিন পেয়েছেন। এর মধ্যে প্রায় ৫৪৭,১৬৩ বা প্রায় ৪৩.৭% জনের জাতি সম্পর্কিত তথ্য রেকর্ড করা হয়নি বলে স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে। জাতিভেদে প্রথম ডোজ ভ্যাকসিন যারা নিয়েছেন তাদের মধ্যে রয়েছে-
৪১.৭% সাদা
৩.৭% কালো
১.১% হলেন এশিয়ান বা প্যাসিফিক আইল্যান্ডার
০.৩% আমেরিকান ইন্ডিয়ান / আলাসকান নেটিভ
৯.৫% অন্যান্য হিসাবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।
মিশিগানই প্রথম রাজ্য যেটি জাতি ও বর্ণের ভিত্তিতে  আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বিশ্লেষণ করেছে। গত বছরের এপ্রিল মাসে রাজ্যটি আবিষ্কার করেছে যে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নিহতদের মধ্যে ৪০% আফ্রিকান আমেরিকান, যদিও কৃষ্ণাঙ্গরা এই রাজ্যের জনসংখ্যার প্রায় ১৪%।

Source & Photo: http://detroitnews.com


এ জাতীয় আরো খবর