বুধবার, জুলাই ২৮, ২০২১

ডি ক্লাসের ব্রাহ্মণবাড়িয়া স্টেশনে থামবে ট্রেন

  • জেলা প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া :
image

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেললাইনে হেফাজতের কর্মীদের অগ্নিসংযোগ (ফাইল ছবি)

ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ১৩ জুন (ঢাকা পোস্ট) : হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থকদের চালানো তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন দুই মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর আবারও চালু হচ্ছে। আপাতত ‘ডি ক্লাস’ মর্যাদার স্টেশন হিসেবে কার্যক্রম শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।
হেফাজতের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আগে স্টেশনটি ‘বি ক্লাস’ মর্যাদার ছিল। মঙ্গলবার (১৫ জুন) থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনে চারটি মেইল ও কমিউটার ট্রেন এবং পরদিন বুধবার (১৬ জুন) থেকে একটি আন্তঃনগর ট্রেন যাত্রাবিরতি করবে।
সংস্কার কাজ ও সিগনালিং ব্যবস্থা পুনরায় স্থাপন না হওয়া পর্যন্ত ডি ক্লাসেই থাকবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন। রেলওয়ের ট্রাফিক ট্রান্সপোর্টেশান শাখার উপপরিচালক (অপারেশন) রেজাউল হক স্বাক্ষরিত চিঠি থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। 
হেফাজতের তাণ্ডবে ধ্বংসস্তূপে পরিণত ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনে ২৭ মার্চ থেকে সব সব ধরনের ট্রেনের নির্ধারিত যাত্রাবিরতি স্থগিত রয়েছে। স্টেশনের সিগনালিং ব্যবস্থা পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাওয়ায় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ স্টেশনটির সার্বিক কার্যক্রম বন্ধ রাখে।
রেলওয়ের ওই চিঠিতে বলা হয়, যাত্রীদের সুবিধা বিবেচনায় নিয়ে সাময়িকভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনকে ‘ডি ক্লাস' স্টেশনে রূপান্তর করে ট্রেন চালু করা হচ্ছে।
১৫ জুন থেকে সুরমা মেইল, ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস, তিতাস কমিউটার ও কর্ণফুলী কমিউটার ট্রেন যাত্রাবিরতি করবে। এরপর ১৬ জুন থেকে নিয়মিত যাত্রাবিরতি করবে ঢাকা-সিলেট রেলপথে চলাচলকারী আন্তঃনগর পারাবত এক্সপ্রেস।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার মো. শোয়েব আহমেদ বলেন, স্টেশনে ট্রেনের যাত্রাবিরতি শুরু হবে বলে শুনেছি। তবে দাপ্তরিকভাবে চিঠি এখনো পাইনি।


 

এ জাতীয় আরো খবর