বুধবার, জুলাই ২৮, ২০২১

ওষুধের ওভারডোজে এক বছরে ৯৩ হাজার মার্কিনীর মৃত্যু

  • সুপ্রভাত মিশিগান ডেস্কঃ
image

ছবি : পিক্সাবে

নিউইয়র্ক, ২০ জুলাই : কোভিড-১৯ মহামারীর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে গত বছর ওষুধের মাত্রাতিরিক্ত প্রয়োগে  ৯৩ হাজার মার্কিনির মৃত্যু হয়েছে। ২০১৯ সালে একই কারণে ৭২ হাজার মার্কিনির মৃত্যু ঘটে। যা বিগত বছর থেকে ২৯ শতাংশ বেশি। এর আগে এক বছরে ওষুধের ওভারডোজে যুক্তরাষ্ট্রে এত মৃত্যু ঘটেনি। গত বুধবার (১৫ জুলাই) প্রাথমিক উপাত্তের ভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্র্রোলের (সিডিসি) প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। 
এদিকে মাদকের ব্যবহারের এ বৃদ্ধির পেছনে করোনাভাইরাসকেই অনেকটা দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। এর সঙ্গে একমত হয়েছে সিডিসি।
ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনস্বাস্থ্য গবেষক ব্র্যান্ডন মার্শাল বলেন, এটি মানুষের জীবনের এক বিস্ময়কর ক্ষতি। তিনি মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ প্রয়োগের প্রবণতা নিয়ে কাজ করছেন। তিনি বলেন,  ‘একদিকে অতিরিক্ত ওষুধ প্রয়োগে জাতি ভুগছে অন্যদিকে করোনা মহামারী গভীর করে তুলেছে’।  বিশেষজ্ঞরা বলেন, লকডাউন এবং অন্যান্য মহামারী বিধিনিষেধ মাদকাসক্তদের বিচ্ছিন্ন করে দেয় এবং চিকিৎসা কে কঠিন করে তোলে। 
জর্ডান ম্যাকগ্ল্যাশেন গত বছর মিশিগানের ইপসিলান্টি অ্যাপার্টমেন্টে ড্রাগ ওভারডোজে মারা যান। ৩৯তম জন্মদিনের আগের দিন ৬ মে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। তিনি একা ছিলেন, এবং মানসিকভাবে ভুগছিলেন। তিনি হেরোইনসহ অন্যান্য মাদকে আসক্ত ছিল। জর্ডান ম্যাকগ্ল্যাশেনের মৃত্যুর জন্য হেরোইন এবং ফেনটানিয়ালকে দায়ী করা হয়েছিল।
চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশনে ব্যথা নাশক ওষুধ মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার হচ্ছে। ফেন্টানেল ক্যান্সারের মতো অসুস্থতার পাশাপাশি তীব্র ব্যাথার উপশমে ব্যবহার হয়। যুক্তরাষ্ট্রে এটি গত কয়েক বছরে অবৈধভাবে বিক্রি বেড়েছে এবং অন্যান্য ড্রাগের সাথে মিশে যাওয়ারও খবর পাওয়া গেছে।  
তবে, সিরাকিউজ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক শ্যানন মোন্নতা বলেন, গত বছর মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ প্রয়োগে বহু সংখ্যক আমেরিকানের মৃত্যু হয়েছে এমন কোন প্রমাণ নেই। বরং মৃত্যুর বৃদ্ধির পেছনে হয়তো নেশার কারণ হতে পারে। 
২০২০ সালে মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ প্রয়োগে মৃত্যু নিয়ে পর্যালোচনা করেছে রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি)। তাদের মতে এক বছরেই ওষুধের ওভারডোজে ৯৩ হাজার মানুষ মারা গেছেন। আশ্চর্যজনক বিষয়ক হচ্ছে দৈনিক ২৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। সিডিসি’র তথ্যমতে, যুক্তরাষ্ট্রে ১৯৭০-এর দিকে হেরোইন সেবনে মহামারী দেখা দিলে মাত্রাতিরিক্ত ওষুধের ফলে ৭ হাজার ২শ’ জন মারা যান। আর ১৯৮৮ সালে প্রাণ হারান ৯ হাজারের মতো। সিডিসি জানিয়েছে যে ২০২০ সালে নিউ হ্যাম্পশায়ার এবং দক্ষিণ ডাকোটা এই দুটি রাজ্য ছাড়া বাকি সব রাজ্যে ড্রাগ ওভারডোজ বৃদ্ধি পেয়েছে। কেন্টাকির ওভারডোজ গত বছর ৫৪% বেড়ে ২,১০০ এরও বেশি হয়েছে, যা আগের বছর ১,৪০০ এরও কম ছিল। এছাড়াও দক্ষিণ ক্যারোলিনা, পশ্চিম ভার্জিনিয়া এবং ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে মৃত্যুর পরিমাণ বেশি। আর ভেরমন্ট-এ বৃদ্ধি পেয়েছে ৫৮ শতাংশ।
সূত্র : এপি নিউজ/ সিবিসি নিউজ


 

এ জাতীয় আরো খবর