মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৭, ২০২১

শ্রীমঙ্গলের ফুলছড়ি গারোলাইনে ওয়ানগালা উৎসব

  • রজত শুভ্র চক্রবর্তী :
image

 শ্রীমঙ্গল,  (মৌলভীবাজার) ১৫ নভেম্বর : শ্রীমঙ্গল উপজেলার  ফুলছড়ি গারো লাইনে বর্ণাঢ্য আয়োজনে গারো সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী “ওয়ানগালা” নবান্ন উৎসব উদযাপিত হয়েছে। গারোদের বিশ্বাস ‘মিসি সালজং’ বা শস্য দেবতার আশীর্বাদের উপর  নির্ভর করে ফসলের ভালো ফলন হয় । তাই এই শস্য দেবতাকে ধন্যবাদ জানিয়ে ও নতুন ফসল খাওয়ার অনুমতি প্রার্থনার পাশাপাশি সব পরিবারের ভালবাসা, আনন্দ এবং মঙ্গল কামনা করে ওয়ানগালা নামক নবান্ন উৎসব পালন করে থাকে গারো সম্প্রদায়।

সিলেট বিভাগের গারো সম্প্রদায়ের সংগঠন “শ্রীচক নকমা এসোসিয়েশন” আয়োজিত উৎসবের প্রথম দিন ১৪ নভেম্বর  রবিবার সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত হয় ওয়ানগালা উৎসবের বিশেষ খ্রিষ্টযাগ। এবারের ওয়ানগালা খামাল  বা পুরোহিত  হয়ে খ্রিষ্টযোগ অর্পণ করেন সিলেট ক্যাথলিক ধর্মপ্রদেশের বিশপ শরৎ ফ্রান্সিস্ গোমেজ, ফাদার ওয়াল্টার রোজারিও , নটরডেম স্কুল এন্ড কলেজ এর ভাইস্‌ প্রিন্সিপাল ফাদার মৃণাল ম্রং সিএসসি এবং ওয়ানগালা সার্বিক পরিচালনা করেন খামাল জনসন মৃ প্রমুখ। গারো সম্প্রদায়ের তেরো গোত্রের প্রতিনিধিরা উপস্থিত থেকে নতুন ফলনের খাদ্য-শস্য ও চু বিচ্চিসহ বিভিন্ন উপহার তাদের প্রভূকে উৎসর্গ করেন।

এবারের ওয়ানগালা উৎসবে আশীষ ডিও এবং স্যামুয়েল হাজং এর সঞ্চালনায় সিলেট ক্যাথলিক ডাইয়োসিসের বিশপ শরৎ ফ্রান্সিস গোমেজের সভাপতিত্বে উক্ত আচার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান, বিশেষ অতিথি শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  নজরুল ইসলাম, শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়, শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিতালি দত্ত, উপজেলা সহকারী কর্মকর্তা ভূমি নেছার উদ্দিন , শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: শামীম অর রশিদ তালুকদার, শ্রীমঙ্গলস্থ নটরডেম স্কুল এন্ড কলেজের ভাইস্‌ প্রিন্সিপাল ফাদার মৃণাল ম্রং সিএসসি, কারিতাস এর আঞ্চলিক পরিচালক বনিফাস খংলা, ডিসটন ডিভিশন ডিপুটি ম্যানেজার হুমায়ন কবির মজুমদার, মাজদিহি চা বাগানের ম্যানেজার শ্রীমান কান্তি বড়ুয়া, আইএলও প্রোগ্রাম সমন্বয়কারী আলেক্স চিছাম, কালাপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য অমৃত সিং ছত্রী প্রমূখ।

ওয়ানগালা উৎসবের পরিচালনা কমিটি সভাপতি ক্ষিতিশ আরেং বলেন, ওয়ানগালা হলো নবান্ন উৎসব। এই ওয়ানগালা উত্তর-পূর্ব ভারতের সেভেন সিস্টার এর একটি মেঘালয়, বাংলাদেশের বৃহত্তর ময়মনসিংহ এবং অন্যান্য অঞ্চলে বসবাসকারী গারোদের প্রধান ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব। এটি ওয়ান্না ও একশত ঢোলের উৎসব নামে ও পরিচিত। এই উৎসব সাধারণত দুইদিন ধরে চলে। । উৎসবের প্রথম দিনে গোত্র প্রধানের ঘরে রাগুলা নামের অনুষ্ঠান পালিত হয় ও উৎসবের দ্বিতীয় দিনে কাক্কাত অনুষ্ঠানটি হয়ে থাকে। 


এই দিনে গারো সম্প্রদায়ের লোকেরা রঙ-বেরঙের বাহারি পোষাক এবং মাথায় পাখির পালক দিয়ে সেজে লম্বা ঢোলের বাজনার তালে তালে নাচে গানে আনন্দ আর আনন্দ আড্ডায় সারা গারো পাহাড়  মুখরিত হয়ে ওঠে। এই আনন্দঘন অনুষ্ঠানে পুরুষ ও নারীরা দুইটি  সারি গঠন করে, নাচের তালে তালে আলাদাভাবে অনুষ্ঠান মঞ্চের দিকে এগিয়ে যান। মহিষের বাঁকানো শিং দিয়ে তৈরি এক ধরনের বিশেষ বাঁশির মোহনীয় সুর বাজতে থাকে এই ওয়ানগালা উৎসবে  সাধারণত: সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর মাসে গারো সম্প্রদায়ের এই নবান্ন উৎসব পালন করা হয় ।
  

 

 

 

 


এ জাতীয় আরো খবর